You are currently viewing Nervous system

Nervous system

Nervous system ( স্নায়ুতন্ত্র )

  • স্নায়ুতন্ত্র সংজ্ঞা ( Definition of Nervous system ) = নিউরোন বা স্নায়ুকোশ দিয়ে গঠিত যে তন্ত্রের সাহায্যে উন্নত প্রাণীদেহে প্রয়োজন মতো উদ্দীপনা গ্রহণ , উদ্দীপনায় সাড়া দিয়ে পরিবেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য রক্ষা এবং দেহের বিভিন্ন অঙ্গ ও তন্ত্রের মধ্যে সমন্বয়সাধন হয় , তাকে স্নায়ুতন্ত্র বলে ।
  • স্নায়ুতন্ত্রের কাজ = ( Functions of Nervous system ) = ১) সমন্বয়সাধন , ২) উদ্দীপনায় সাড়া দান , ৩) পেশিও গ্রন্থির কার্যকরিতা নিয়ন্ত্রণ , 8) মানসিক ও প্রতিবর্ত ক্রিয়া পরিচালন ।
  • স্নায়ুতন্ত্রের শ্রেণিবিভাগ = মানুষের স্নায়ুতন্ত্র প্রধানত তিন ভাগে বিভক্ত। যথা –

১) কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র ( Central Nervous System ) : এটি মস্তিষ্ক এবং সুষুম্নাকাণ্ড নিয়ে গঠিত ।

২) প্রান্তীয় স্নায়ুতন্ত্র ( Perpheral Nervous System ) : কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র থেকে নির্গত সমস্ত রকম স্নায়ু নিয়ে কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র গঠিত হয়েছে , যা মস্তিষ্ক থেকে নির্গত হওয়া 12 জোড়া ক্রেনিয়াল নার্ভ বা করোটিক স্নায়ু এবং সুষুম্নাকাণ্ড থেকে নির্গত 31 জোড়া সুষুম্না স্নায়ু বা সুষুম্নীয় স্নায়ু নিয়ে গঠিত ।

৩) স্বয়ংক্রিয় স্নায়ুতন্ত্র ( Autonomic Nervous System ) : যেসব স্নায়ু প্রাণীদেহের আন্তর যন্ত্র তথা অনৈচ্ছিক পেশিগুলিতে বিস্তৃত থেকে তাদের কার্যকারিতা নিয়ন্ত্রণ করে , থাকতে তাদের স্বয়ংক্রিয় বা অটোনোমিক স্নায়ুতন্ত্র বলে । স্বয়ংক্রিয় স্নায়ুতন্ত্র দু’ভাগে বিভক্ত , যথা a ) সিমপ্যাথেটিক স্নায়ুতন্ত্র এবং ( b ) প্যারাসিমপ্যাথেটিক স্নায়ুতন্ত্র ।

স্নায়ুতন্ত্রের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন

1) মায়ুতন্ত্রের অবস্থান : মস্তিষ্ক ।

2) মানব মস্তিষ্কের ওজন : 1200-1400 গ্রাম ।

3) মানব মস্তিষ্কের আয়তন : 1450 ঘনসেমি ।

4) স্নায়ুতন্ত্রের গঠনগত ও কার্যগত একক : নিউরেন ।

5) মানব শরীরের সবচেয়ে বড় কোশ : স্নায়ুকোশ ।

6) স্নায়ুকোশ বিভাজিত না হবার কারণ : সেন্ট্রিওলের অনুপস্থিতি ।

7) নিউরোন কী কী অংশ দ্বারা গঠিত : কোশদেহ ও প্রলম্বিত অংশ ।

8) প্রলম্বিত অংশ কী কী দ্বারা গঠিত : অ্যাক্সন ও ডেনড্রন ।

9) নিউরোনে অবস্থিত দীর্ঘ শাখাবিহীন প্রলম্বিত অংশ : অ্যাক্সন ।

10) নিউরোনে অবস্থিত ক্ষুদ্র শাখাযুক্ত প্রলম্বিত অংশ : ডেনড্রন।

11) একটি নিউরোনে প্রাপ্ত অ্যাক্সনের সংখ্যা : একটি ।

12) অ্যাক্সনের চারপাশে অবস্থিত পাতলা আবরণ : নিউরোলেমা।

13) অ্যাক্সনের মধ্যবর্তী অংশে অবস্থিত প্রোটিন ও ফ্যাট নির্মিত স্তর : মায়োলিন সিদ ।

14) অ্যাক্সনে অবস্থিত দুই মায়োলিন সিদের মধ্যবর্তী অংশ : র‍্যানভিয়ার পর্ব ।

15) দুটি নিউরোনের সংযোগস্থল কি নামে পরিচিত : সাইন্যাপস ।

16) অ্যাক্সনের মূল অক্ষের আবরণী : অ্যাক্সোলেমা ।

17) অ্যাক্সনের প্রধান কার্য : কোশদেহ থেকে উদ্দীপনা বাইরে নিয়ে যাওয়া ।

18) ডেনড্রন থেকে যে শাখা বের হয় তা হল : ডেনড্রাইট।

19) একটি নিউরোনে প্রাপ্ত ডেনড্রনের সংখ্যা : শূন্য থেকে শতাধিক ।

20) ডেনড্রনের প্রধান কার্য : উদ্দীপনাকে কোশ দেহে পৌঁছে দেওয়া ।

21) নিউরোনের ধারক কোশ কি নামে পরিচিত : নিউরোস্লিয়া ।

মস্তিষ্ক

  • মস্তিষ্ক সংজ্ঞা : সুষুম্মকান্ডের শীর্ষে করোটির ক্যানিয়াল গহূরে অবস্থিত কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের অন্তর্গত যে স্ফীত অংশটি প্রাণির বুদ্ধি , চিন্তা , স্মৃতি , আবেগ ও জ্ঞানেন্দ্রিয়ের কার্য নিয়ন্ত্রণ করে তাকে মস্তিষ্ক বলে ।
  • অবস্থান : মানুষের মস্তিষ্ক খুলির ক্রানিয়াল গহূরে অবস্থিত ।
  • ওজন : 1:36 কেজি ( দেহের ওজনের 2 % ) ।
  • স্নায়ুকোশের সংখ্যা : প্রায় 100 কোটি ।
  • আবরণ : মস্তিষ্ক ত্রিস্তরীয় পর্দা দ্বারা আবৃত থাকে , একে মেনিনজেস বলে । বাইরের থেকে ভেতরের দিকে স্তরগুলি হল— ডুরামেটার , অ্যারানয়েড এবং পিয়ামেটার ।
  • গঠন : মস্তিষ্ক প্রধানতঃ তিনটি অংশ নিয়ে গঠিত হয় । সেগুলি হল — অগ্রমস্তিষ্ক , মধ্যমস্তিষ্ক এবং পশ্চাদ মস্তিষ্ক ।
  • অগ্রমস্তিষ্ক : ইহা মস্তিষ্কের ওপরের দিকের অংশ । ইহা গুরুমস্তিষ্ক , থ্যালামাস এবং হাইপোথ্যালামাস নিয়ে গঠিত ।

 

১) গুরুমস্তিষ্কের কাজ — স্পর্শবোধ , চেতনাবোধ , মানসিক কাজগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করে ।

২) থ্যালামাসের কাজ — ক্রোধ , লজ্জা , বেদনা প্রভৃতি মানসিক আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে ।

৩) হাইপোথ্যালামাসের কাজ — মানসিক আবেগ , ক্ষুদা , তৃয়া , নিদ্রা ইত্যাদি নিয়ন্ত্রণ করে ।

  • মধ্যমস্তিষ্কের কাজ : দর্শন এবং শ্রবণ প্রতিবর্ত কেন্দ্র , পেশীটান , উয়তা ইত্যাদি ।
  • পশ্চাদমস্তিষ্ক : মধ্যমস্তিষ্কের নীচে অবস্থিত । ইহা লঘুমস্তিষ্ক , পনস বা যোজক এবং সুষুম্মাশীৰ্ষক নিয়ে গঠিত ।

১) লঘু মস্তিষ্ক : সুষুম্মাশীৰ্ষকের পৃষ্ঠদেশে অবস্থিত পশ্চাদমস্তিষ্কে সর্ববৃহৎ অংশ । ইহা বাম এবং ডান গোলার্ধে বিভক্ত । এই গোলার্ধদ্বয় ভারমিস নামক যোজক দ্বারা যুক্ত থাকে । কাজ — ভারসাম্য রক্ষা করে ।

২) পনস : মধ্যমস্তিষ্ক ও সুষুম্মাশীষকের মধ্যে অবস্থিত । কাজ- মস্তিষ্কের বিভিন্ন অংশের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে ।

৩) সুষুম্মাশীৰ্ষক : পনসের পিছনদিকে এবং সুষুম্মাকান্ডের অগ্রভাগে অবস্থিত । কাজ — হৃদস্পন্দন , শ্বাসক্রিয়া, খাদ্যগ্রহণ , লালা , ঘর্ম নিঃসরণ ইত্যাদি নিয়ন্ত্রণ করা ।

স্নায়ুতন্ত্রের সম্পূর্ণ অংশ এবং কিছু প্রশ্ন নিচের দেওয়া পিডিএফ এরমধ্যে দেওয়া হয়েছে । এই পিডিএফটি ডাউনলোড করতে, নিচে দেওয়া ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করুন ।

এই PDF টি Download করতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন ।

Leave a Reply